• কবিতা সুর্মা


    কবি কবিতা আর কবিতার কাজল-লতা জুড়ে যে আলো-অন্ধকার তার নিজস্ব পুনর্লিখন।


    সম্পাদনায় - উমাপদ কর
  • ভাবনালেখা লেখাভাবনা


    কবিতা নিয়ে গদ্য। কবিতা এবং গদ্যের ভেদরেখাকে প্রশ্ন করতেই এই বিভাগটির অবতারণা। পাঠক এবং কবির ভেদরেখাকেও।


    সম্পাদনায় - অনিমিখ পাত্র
  • সাক্ষাৎকার


    এই বিভাগে পাবেন এক বা একাধিক কবির সাক্ষাৎকার। নিয়েছেন আরেক কবি, বা কবিতার মগ্ন পাঠক। বাঁধাগতের বাইরে কিছু কথাবার্তা, যা চিন্তাভাবনার দিগন্তকে ফুটো করে দিতে চায়।


    সম্পাদনায়ঃ মৃগাঙ্কশেখর গঙ্গোপাধ্যায়
  • গল্পনা


    গল্প নয়। গল্পের সংজ্ঞাকে প্রশ্ন করতে চায় এই বিভাগ। প্রতিটি সংখ্যায় আপনারা পাবেন এমন এক পাঠবস্তু, যা প্রচলিতকে থামিয়ে দেয়, এবং নতুনের পথ দেখিয়ে দেয়।


    সম্পাদনায়ঃ অর্ক চট্টোপাধ্যায়
  • হারানো কবিতাগুলো - রমিতের জানালায়


    আমাদের পাঠকরা এই বিভাগটির প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেছেন বারবার। এক নিবিষ্ট খনকের মতো রমিত দে, বাংলা কবিতার বিস্মৃত ও অবহেলিত মণিমুক্তোগুলো ধারাবাহিকভাবে তুলে আনছেন, ও আমাদের গর্বিত করছেন।


    সম্পাদনায় - রমিত দে
  • কবিতা ভাষান


    ভাষা। সে কি কবিতার অন্তরায়, নাকি সহায়? ভাষান্তর। সে কি হয় কবিতার? কবিতা কি ভেসে যায় এক ভাষা থেকে আরেকে? জানতে হলে এই বিভাগটিতে আসতেই হবে আপনাকে।


    সম্পাদনায় - শৌভিক দে সরকার
  • অন্য ভাষার কবিতা


    আমরা বিশ্বাস করি, একটি ভাষার কবিতা সমৃদ্ধ হয় আরেক ভাষার কবিতায়। আমরা বিশ্বাস করি সৎ ও পরিশ্রমী অনুবাদ পারে আমাদের হীনমন্যতা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক পরিসরটি সম্পর্কে সজাগ করে দিতে।


    সম্পাদনায় - অর্জুন বন্দ্যোপাধ্যায়
  • এ মাসের কবি


    মাসের ব্যাপারটা অজুহাত মাত্র। তারিখ কোনো বিষয়ই নয় এই বিভাগে। আসলে আমরা আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালবাসার কবিকে নিজেদের মনোভাব জানাতে চাই। একটা সংখ্যায় আমরা একজনকে একটু সিংহাসনে বসাতে চাই। আশা করি, কেউ কিছু মনে করবেন না।


    সম্পাদনায় - নীলাব্জ চক্রবর্তী
  • পাঠম্যানিয়ার পেরিস্কোপ


    সমালোচনা সাহিত্য এখন স্তুতি আর নিন্দার আখড়ায় পর্যবসিত। গোষ্ঠীবদ্ধতার চরমতম রূপ সেখানে চোখে পড়ে। গ্রন্থসমালোচনার এই বিভাগটিতে আমরা একটু সততার আশ্বাস পেতে চাই, পেতে চাই খোলা হাওয়ার আমেজ।


    সম্পাদনায় - সব্যসাচী হাজরা
  • দৃশ্যত


    ছবি আর কবিতার ভেদ কি মুছে ফেলতে চান, পাঠক? কিন্তু কেন? ওরা তো আলাদা হয়েই বেশ আছে। কবি কিছু নিচ্ছেন ক্যানভাস থেকে, শিল্পী কিছু নিচ্ছেন অক্ষরমালা থেকে। চক্ষুকর্ণের এই বিনিময়, আহা, শাশ্বত হোক।


    সম্পাদনায় - অমিত বিশ্বাস

অমিত দে





অমিত দে- কবিতা


বয়সকাল

তোর হাতের ছাপ রেখেছি
কলাপাতার কচি থেকে
বেদনাহীন বিকেলের
চাহনির সাথে

হাঁটুজলের স্রোতে নতুন বৃষ্টি -
সম্প্রীতি গড়ায় যতটা

কিছু নিজস্ব
কিছু বা তার

সন্ধ্যার ছাদ হয়ে উঠেছে
              
লেভেলক্রসিং


একটি লেখা

শিলালিপির পাশে আমার আত্মা  শুয়ে, অবুঝ লিপি আর আমার ফকিরি আত্মা
কতজনের দেহ প্রাণ পেল তরতাজা প্রাণ চর্বি বিকোয় না

দেখতে পাই প্রাতিরাতে কতজন  নতজানু হয়ে পাগল বোধ থেকে বোধিলাভ প্রার্থনা
সেইসব অক্ষর আজ ঐতিহ্যহীন

কল্পচিত্র অনেক হল এবার শব্দ খুলে খুলে গড়ে তুলি আত্মীয়ঘর
সেখান থেকে আসে কুশল সংবাদ...... যুবক তুমি ঘুমিও না


লোডশেডিং

অরকেরিয়া সাইকাশে
স্থির শ্বসনবেলা

ঘরের জমিতে রাতের
ফসল এল বলে
পাতাঝরা বৃষ্টিরা
তিস্তা বেড়াতে গেল

আমার ঘুমের পাশে
চাঁদ খোঁড়া হয়ে হাঁটে
একমাত্র সাক্ষী মোবাইল টাওয়ার
নীচে কিছু আলো চোখ

এরপর
নিসঙ্গ ভি করলেও

তুমি  মানুষই থাকবে


দেখা

কেউ বলেনি আমি মৃত

দিনের আলোরা মিথ্যে কথা বলে

সারাদিন একটু সরে যেতে যেতে
এখন আমার মাথায়
জমাট বাঁধা সাদা রক্ত

আর কাকে ডাকবে
                             শুদ্ধ চোখ
My Blogger Tricks

1 টি মন্তব্য:

  1. একটি লেখা- অমিত তোর নিজস্বতায় ভালো লাগলো খুব।

    উত্তরমুছুন